বন্ধ হয়ে গেল স্কলারশিপ,কঠিন হল দরিদ্র মেধাবীদের উচ্চশিক্ষা।

দরিদ্র পরিবার থেকে উঠে আসা মেধাবী পড়ুয়াদের উচ্চশিক্ষায় অন্যতম ভরসা বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি স্কলারশিপ গুলি।কিন্তু সম্প্রতি কেন্দ্র সরকার অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ এই স্কলারশিপটি বন্ধ করার আদেশ দিল।এই স্কলারশিপটি হল মৌলানা আজাদ স্কলারশিপ।(Maulana Azad Scholarship)

মূলত সংখ্যালঘু ছাত্র-ছাত্রীরা এমফিল ও ডক্টরেট করার সময় এই স্কলারশিপ থেকে আর্থিক সুবিধা পেয়ে থাকে। এই স্কলারশিপ থেকে মোট পাঁচটি সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের ছাত্রছাত্রীরা আর্থিক অনুদান পেয়ে থাকে।এই পাঁচটি সম্প্রদায় হল মুসলিম,খ্রিস্টান,বৌদ্ধ,পারসি ও শিখ।  

২০০৫ সালে কেন্দ্রের ইউপিএ সরকার সংখ্যালঘুদের উপর সমীক্ষা করে ,ওই সমীক্ষায় দেখা যায় সংখ্যালঘুদের শিক্ষার মান আদিবাসী,তপশিলি জাতিদের থেকেও খারাপ।

(আরও পড়ুন : বড়দিনের আগে ফের বাড়লো ডিমের দাম;জেনে নিন প্রতি পিসের দাম)

এই অবস্থা পরিবর্তনের জন্য দরিদ্র অথচ মেধাবী সংখ্যালঘু ছাত্র-ছাত্রীদের সুবিধার্থে মৌলানা আজাদ স্কলারশিপ (Maulana Azad Scholarship) চালু করা হয়।এই স্কলারশিপের আওতাভুক্ত ছাত্র-ছাত্রীরা বেশ কিছুদিন ধরেই টাকা পাচ্ছিলেন না।কিছুদিন আগে সংখ্যালঘু উন্নয়ন মন্ত্রী স্মৃতি রানী জানিয়ে দেন বন্ধ করা হচ্ছে মৌলানা আজাদ স্কলারশিপ।এর ব্যাখ্যা দিতে গিয়ে স্মৃতি ইরানি জানিয়েছেন যে সংখ্যালঘুদের অনেক স্কলারশিপ আছে যা থেকে তারা আর্থিক সুবিধা পেয়ে থাকে তাই ২০২২-২০২৩ শিক্ষাবর্ষ থেকে বন্ধ হচ্ছে মৌলানা আজাদ স্কলারশিপ।       

এই স্কলারশিপ বন্ধের প্রতিবাদে ব্যাপক বিক্ষোভে শামিল হয়েছে জামিয়া মিলিয়া, জহরলাল নেহেরু ইউনিভার্সিটি,দিল্লী ইউনিভার্সিটি,আম্বেদকার ইউনিভার্সিটির ছাত্র-ছাত্রীরা। তাদের দাবি সরকারের এই দায়িত্বজ্ঞানহীন সিদ্ধান্তের ফলে সংকটে পড়বে হাজার হাজার দরিদ্র মেধাবী সংখ্যালঘু পড়ুয়ার উচ্চশিক্ষার ভবিষ্যৎ।

শেয়ার করুন

Leave a Comment