নিজের করা ভোটে নিজেই হেরে গেলেন ইলন মাস্ক ! এবার কি তাহলে CEO পদ ছাড়বেন ?

বিতর্ক যেন পিছু ছাড়ছেন না ইলন মাস্কের অথবা বলতে পারেন বিতর্ক তৈরি করতে ভালোবাসেন ইলন মাস্ক। বিগত 27 অক্টোবর (2022) বহু বিবাদের পরে ভারতীয় বংশোদ্ভূত পরাগ আগরওয়াল যিনি পূর্বে ওই পদে ছিলেন, তাকে পদচ্যুত করে 44 বিলিয়ন ডলারে টুইটার কিনে তার নতুন CEO হিসাবে যোগদান করেন মাস্ক। এর পরে অন্দরমহলে শুরু হয় বিবাদ, অনেক কর্মী নিজ হতে পদত্যাগ করেন এবং অনেক কেই পদচ্যুত করা হয়। এই নিয়ে গোটা বিশ্বে চলে নানা বিতর্ক, আলোচনা, কেউ মাস্কের পক্ষে অথবা কেউ বিপক্ষে কথা বলেন। টুইটার ছাড়াও মাস্ক বিশ্বের অন্যতম নামী ইলেকট্রিক গাড়ি নির্মাতা সংস্থা টেসলা (Tesla) এবং স্পেস এক্স (SpaceX) নামক রকেট ও স্যাটেলাইট নির্মাতা সংস্থার মালিক। সাথে সাথে বর্তমানে বিশ্বের সর্বোচ্চ ধনী মানুষের তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে আছেন। (22,12,2022 তথ্য অনুসারে)

(আরও পড়ুন : 10 সিরিজের ফোন ভারতে লঞ্চ করলো Realme;জানুন দাম,ফিচার ও অন্যান্য তথ্য।)

গত 18 ডিসেম্বর মাস্ক নিজের টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে একটি পোল/ভোট পোস্ট করেন। সেই পোস্টের মাধ্যমে তিনি সাধারণ মানুষের মতামত জানতে চেয়ে লেখেন, ” আমি কি টুইটারের প্রধান পদ থেকে পদত্যাগ করব? আমি এই ভোটের ফলাফল মেনে চলব” এবং নিচে দুটি বিকল্প যোগ করেন “হা” এবং “না”। পরবর্তীতে এই ভোটের চূড়ান্ত ফলাফল বেরিয়ে আসলে দেখা যায়, পক্ষে ভোট পান 57% এবং বিপক্ষে 43%। মোট ভোটদাতারা সংখ্যা 17,502,391 জন। এই ঘটনার পরে আলোচনা শুরু হয় সোশ্যাল মিডিয়াতে। অনেকেই প্রশ্ন তোলেন যে, তাহলে কি টুইটার CEO পদ ছেড়ে দেবেন ইলন মাস্ক। এই ভোটের উত্তর হিসেবে 21 ডিসেম্বর একটি নতুন টুইটের মাধ্যমে লেখেন, “চাকরি নেওয়ার মতো বোকা কাউকে পাওয়া মাত্রই আমি সিইও পদ থেকে পদত্যাগ করব! এর পরে, আমি শুধু সফ্টওয়্যার এবং সার্ভার দল চালাব”। যদিও এখনো অব্দি CEO পদ ছাড়বেন কি না সে বিষয়ে চূড়ান্ত ঘোষণা করেননি এবং কে হবে পরবর্তী CEO সে বিষয়েও কোনো প্রকার খোলাসা করেননি এলন মাস্ক।

শেয়ার করুন

Leave a Comment