PM Awas Yojana : শুরু হল অ্যাকাউন্টে টাকা পাঠানোর প্রক্রিয়া,সময়সীমা বেঁধে দিল নবান্ন।

৩১শে ডিসেম্বর শেষ হয়েছে আবাস যোজনার উপভোক্তাদের তালিকা সম্পূর্ণ করার কেন্দ্রের ডেডলাইন। কেন্দ্রের সকল নিয়ম মেনে ১০ লক্ষ ১৯ হাজার উপভোক্তার নাম তালিকায় রয়েছে। যদিও এখনও পর্যন্ত ১ লক্ষ ১৭ হাজার নাম নথিভুক্ত করতে বাকি রয়েছে। এরই মধ্যে নবান্ন থেকে জানিয়ে দেওয়া হল আবাস যোজনায় নাম থাকা উপভোক্তাদের বাড়ি তৈরির কাজ  ৯০ দিনের মধ্যে সম্পূর্ণ করতে হবে। এদিন রাজ্যের মুখ্যসচিব দু ঘন্টার ভার্চুয়াল মিটিংয়ে জেলাশাসকদের একথা জানান।       

       (আরও পড়ুন : আর চলবে না গড়িমসি;৯০ দিনে বাড়ি না বানালে জরিমানা।)

এছাড়া ওই মিটিংয়ে কোন জেলায় কতজন করে উপভোক্তা বাড়ি তৈরির অনুমোদন পেয়েছে সেই তথ্যও তুলে ধরেন মুখ্যসচিব।সবচেয়ে বেশি প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনার (PM Awas Yojana) বাড়ি অনুমোদন হওয়া জেলার তালিকার মধ্যে আছে বাঁকুড়া,পশ্চিম বর্ধমান,পূর্ব বর্ধমান, হুগলি,বীরভূম,পুরুলিয়া,উত্তর দিনাজপুর,পশ্চিম মেদিনীপুর,হাওড়া। এই নয়টি জেলায় প্রায় ৯১ থেকে ১০০ শতাংশ আবাস যোজনা উপভোক্তার নাম অনুমোদন পেয়েছে। ৮০ থেকে ৯০ শতাংশ অনুমোদন পাওয়া জেলার মধ্যে আছে দক্ষিণ ২৪ পরগনা,উত্তর ২৪ পরগনা,দক্ষিন দিনাজপুর,ঝাড়গ্রাম,আলিপুরদুয়ার,মালদা,নদিয়া, জলপাইগুড়ি,পূর্ব মেদিনীপুর।

পঞ্চায়েত গ্রাম উন্নয়ন দপ্তর মারফত জানা গেছে রাজ্যের মধ্যে আবাস প্লাস যোজনার সবচেয়ে বেশি বাড়ি অনুমোদিত হয়েছে বাঁকুড়া জেলায় (৯৮.২০ শতাংশ), কিন্তু মোট সংখ্যা নিরিখে সবচেয়ে বেশি অনুমোদন প্রাপ্ত জেলা হল কোচবিহার (১,১৯২৭৫)।       

(আরও পড়ুন : আর করা যাবে না বিলে গরমিল,স্বাস্থ্য সাথী টাকা সুরক্ষিত রাখতে আনা হল নয়া নিয়ম।)

মনে করা হচ্ছে ৩১ ডিসেম্বর তালিকা তৈরির কাজ শেষ হওয়ার পর সোমবার থেকে উপভোক্তাদের অ্যাকাউন্টে টাকা পাঠানোর প্রক্রিয়া শুরু হবে এবং বুধ-বৃহস্পতিবার থেকে অ্যাকাউন্টে টাকা ঢুকতে শুরু করবে। ইতিমধ্যেই জেলা শাসকরা বিডিওদের নিয়ে বৈঠক করেছেন। ওই বৈঠকে বিডিওদের ইটভাটা মালিকদের সঙ্গে বৈঠক করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে যাতে করে ৯০ দিনের মধ্যে বাড়ি তৈরির কাজ সম্পূর্ণ করার জন্য নির্মাণ সামগ্রী পর্যাপ্ত পরিমাণে মজুত রাখা।আবাস পারসন (Awas Person) ও স্বনির্ভর গোষ্ঠীর মাধ্যমে বাড়ি তৈরির কাজ কতদূর এগিয়েছে তার রিপোর্ট নিয়মিত জমা করতেও বলা হয়েছে।

শেয়ার করুন

Leave a Comment