রাজ্যে চালু হল স্মার্ট পার্কিং,ঘরে বসেই বুক করুন পার্কিং স্লট।

যানজট সমস্যা পশ্চিমবঙ্গে নিত্য দিনের। বিশেষ করে জনবহুল এলাকায় এবং বড়ো শহর গুলিতে এই সমস্যা আরো বেশি। রাজ্যের যানবাহন সংখ্যা দিনের পর দিন বেড়েই চলেছে। ফলে মানুষ কে পড়তে হচ্ছে গাড়ি পার্কিং সমস্যায়। অনেকেই পার্কিং স্পটে গাড়ি না রাখার জায়গা পেয়ে ঘুরে আসছেন বা অনেকেই বাধ্য হয়ে রাস্তার ধারে গাড়ি রাখছেন। ফলে সৃষ্টি হচ্ছে যানজট,ঝামেলা ও নানা সমস্যা। এছাড়াও পার্কিং স্পটে কর্মরত ব্যাক্তিরা অন্যায় ভাবে অতিরিক্ত টাকা আদায় করছে বলে অনেকেই অভিযোগ করেছেন। এই সমস্ত কথা মাথায় রেখে রাজ্য সরকার ‘স্মার্ট পার্কিং’ (Smart Parking) ব্যবস্থা চালু করতে চলেছে। কলকাতার মেয়র ফিরহাদ হাকিমের হাত দিয়ে ইতিমধ্যেই এর উদ্বোধন হয়ে গেছে। এই উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন কলকাতার মেয়র ফিরহাদ হাকিম,মেয়র পারিষদ দেবাশিস কুমার ও পুলিশ কমিশনার বিনীত গোয়েল এবং অন্যান্যরা।

এই ব্যাবস্থা চালু করার ফলে আপনি আগে থেকেই জানতে পারবেন আপনার নিকটবর্তী কোন জায়গায় পার্কিং এর ব্যবস্থা আছে,কোথায় পার্কিং ফাঁকা আছে,কতো টাকা লাগবে ইত্যাদি। এই সমস্ত তথ্য গুলি আপনি শুধুমাত্র একটি অ্যাপের মধ্যে পেয়ে যাবেন। এই অ্যাপের নাম ‘S-Parking (এস পার্কিং)’। অ্যাপটি এর আগে ২০১৯ সালে লঞ্চ করা হয়েছিল। এবার সেটিকেই পুণরায় নতুন ভাবে ফিচার যোগ করে লঞ্চ করলো রাজ্য সরকার। যদিও বর্তমানে এই ‘স্মার্ট পার্কিং’ ব্যবস্থা শুধু মাত্র চার চাকার জন্য চালু হয়েছে। তবে খুব দ্রুত দুই চাকাকেও অন্তর্ভুক্ত করা হবে বলে জানিয়েছেন মেয়র ফিরহাদ হাকিম।

(আরও পড়ুন : Medhashree Scheme : প্রতি মাসে মিলবে ৮০০ টাকা;কি ভাবে আবেদন করবেন জেনে নিন)

স্মার্ট পার্কিং ব্যবস্থা কি ?

এটি হচ্ছে এমন এক পার্কিং ব্যবস্থা সেখানে আপনি মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমে আগে থেকেই পার্কিং স্পট বুক করতে পারবেন। এছাড়াও এই সমস্ত পার্কিং স্পটে কোনো ধরনের নগদ আদান প্রদানের ব্যবস্থা নেই। সম্পূর্ন টাকা পেমেন্ট হবে অনলাইনে অথবা কার্ডের মাধ্যমে। এই পার্কিং স্পটে যে সব কর্মীরা থাকবে তাদের হাতে ই-পাস নামে একটি যন্ত্র থাকবে যাতে আপনি কার্ডের মাধ্যমে অথবা QR কোড স্ক্যান করে অনলাইনের ইউপিআই এর মাধ্যমে টাকা পেমেন্ট করতে পারবেন। এই ব্যবস্থার ফলে কর্মীরা আপনার কাছে আলাদা করে টাকা আদায় করতে পারবে না। প্রথমে ধাপে ১২৪টি মেশিন দেওয়া হয়েছে। আগামী সময় শহরের সমস্ত পার্কিং স্পটে এই ব্যবস্থা দ্রুত চালু করা হবে বলে জানিয়ে মেয়র ফিরহাদ হাকিম।

S-Parking অ্যাপের সুবিধা গুলি কি কি ?

এই অ্যাপের মাধ্যমে আপনি সহজেই ঘরে বসেই আপনার নিকটবর্তী পার্কিং স্পটের খোজ করতে পারবেন। এই অ্যাপের মাধ্যমেই পার্কিং চার্জ কতো দিতে হবে জানতে পারবেন,ঘণ্টায় কতো টাকা লাগবে জানতে পারবেন,আগাম পার্কিং বুক করতে পারবেন। যে জায়গায় পার্ক করবেন সেই স্থানের নাম দিয়ে সার্চ করলেই আপনি বিস্তারিত তথ্য পেয়ে যাবেন। বুক করার পরে বিনা ঝামেলায় আপনি কিউআর (QR) ভিত্তিক শনাক্তকরণ প্রক্রিয়া মাধ্যমে গাড়ি পার্ক করতে পারবেন।

চার চাকা ও দুই চাকা উভয়েরই পার্কিং চার্জ এই অ্যাপের মাধ্যমে জানতে পারবেন। অনলাইন পেমেন্ট করার পরে পেমেন্ট রশিদ,পেমেন্ট সময়,তারিখ ও অন্যান্য তথ্য এই অ্যাপের মধ্যে সেভ থাকবে।

S-Parking অ্যাপে পার্কিং স্লট বুক করবেন কি ভাবে ?

  • প্রথমে গুগলে প্লে স্টোর থেকে অ্যাপটি ইন্সটল করুন। বর্তমানে এই অ্যাপের সাইজ ৩০ এমবি।
  • এবার আপনার মোবাইল নম্বর ও গাড়ির নম্বর দিয়ে ওটিপির মাধ্যমে রেজিষ্টার করুন।
  • রেজিষ্টার করার পরে গুগল একাউন্ট,ফেসবুক অ্যাকাউন্টের অথবা ফোন নাম্বার মাধ্যমে সাইন ইন করুন।
  • সাইন ইন করার পরে স্ক্রিনে ম্যাপ দেখতে পাবেন। এই ম্যাপের মাধ্যমে আপনি নিকটবর্তী পার্কিং স্পট খুঁজে বের করতে পারবেন।
  • এর পরে ওই মার্কে টাচ করলে পার্কিং এরিয়ার যাবতীয় তথ্য পাবেন,যেমন পার্কিং চার্জ কতো বা পার্কিং স্লট ফাঁকা আছে কি না ইত্যাদি।
  • এবার দুই ধরনের মার্ক দেখত পাবেন সবুজ ও লাল। এখানে সবুজ মার্ক মানে পার্কিং ফাঁকা আছে আর লাল মানে পার্কিং ফাঁকা নেই।
  • পার্কিং স্লট ফাঁকা থাকলে আপনি আপনার পছন্দমত পার্কিং এর জায়গা বেছে নিতে পারবেন এবং পার্কিং প্লেসে কর্মরত কর্মীকে আপনার গাড়ির জন্য স্মার্টফোনে জেনারেট হওয়া কিউআর স্ক্যান করে আপনার গাড়ি পার্ক করতে পারেন।
শেয়ার করুন

Leave a Comment