Foreign Universities In India : সুখবর! ভারতে খুলছে বিদেশি বিশ্ববিদ্যালয়ের শাখা।

0
international universities campus in india

এবার থেকে ভারতের মধ্যে থেকেই পড়াশোনা করা যাবে বিদেশের নামি দামি বিশ্ববিদ্যালয়গুলিতে। সম্প্রতি ইউজিসি (UGC) জানিয়েছে অতি শীঘ্রই বিদেশি বিশ্ববিদ্যালয়গুলিকে ভারতে ক্যাম্পাস খোলার অনুমতি দেওয়া হবে। বর্তমানে আমেরিকা,অস্ট্রেলিয়া ছাড়াও ইউরোপের বিভিন্ন দেশ যেমন ব্রিটেন,জার্মানি প্রভৃতি দেশের ৫০ টিরও বেশি বিশ্ববিদ্যালয়গুলির সঙ্গে কথাবার্তা চালনো হচ্ছে,মনে করা হচ্ছে আগামী ২-৩ বছরের মধ্যেই বিদেশী বিশ্ববিদ্যালয়গুলি ভারতে ক্যাম্পাস খুলে ফেলবে।

দেশের মাটিতে বিদেশী বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাস প্রতিষ্ঠিত হলে আরও বেশি সংখ্যক পড়ুয়া বিদেশী বিশ্ববিদ্যালয়গুলি থেকে উচ্চশিক্ষা অর্জন করতে পারবেন। কারণ অনেক অভিভাবকের কাছে বিপুল টাকা খরচ করে সন্তানদের বিদেশে উচ্চশিক্ষা লাভের জন্য পাঠানো সাধ্যের বাইরে। আবার অনেক অভিভাবকের সামর্থ্য থাকলেও তারা সন্তানদের বিদেশ বিভূইয়ের অচেনা পরিবেশে ছাড়তে চান না। দেশে বিদেশী বিশ্ববিদ্যালয়গুলি ক্যাম্পাস খুললে একদিকে যেমন বাঁচবে টিউশন ফি,থাকা,খাওয়া যাতায়াতের খরচ অন্যদিকে ছাত্র-ছাত্রীদের সম্পূর্ণ নতুন পরিবেশের সঙ্গে খাপ খাইয়ে দেশের বাইরে পড়াশোনা করতে যেতে হবে না।

(Burdwan University Admission : পিএইচডি কোর্সে র্ভর্তি হতে ইচ্ছুক ? সুযোগ দিচ্ছে বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়)

ইউজিসি জানিয়েছে বিদেশি বিশ্ববিদ্যালয়গুলিকে নিজ নিজ ফি ধার্য করার স্বাধীনতা দেওয়া হলেও তা যেন ভারতীয়দের ক্রয় ক্ষমতার সাধ্যের মধ্যে রাখা হয় সে দিকে কড়া নজর রাখা হবে। ইউজিসি চেয়ারম্যান এম জগদীশ কুমার জানিয়েছেন ইউজিসির তরফ থেকে সকল বিদেশী বিশ্ববিদ্যালয়কে তাদের নিজস্ব নিয়ম মেনে অধ্যাপক নিয়োগ,স্টাফ নিয়োগ,ফি নির্ধারণ (Foreign University Campus Fee In India) করতে পারবে। বিশ্ববিদ্যালয়গুলি তাদের মূল ক্যাম্পাসের মতই শিক্ষার মান বজায় রাখবে,মিলবে বিদেশী বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিগ্রী। এর সঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয়গুলি পড়ুয়াদের আংশিক ও সম্পূর্ণ বৃত্তির সুযোগ সুবিধা প্রদান করবে যাতে করে বেশি সংখ্যায় আর্থিক ভাবে দুর্বল মেধাবী পড়ুয়ারা উচ্চশিক্ষিত হতে পারে।

গত বছরের মে মাস থেকে চালু হয়েছে দ্বৈত ডিগ্রী ব্যবস্থা,নতুন এই ব্যবস্থায় কোন পড়ুয়া বিদেশ গিয়ে কোন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে একটি বা দুটি সেমিস্টারে পড়াশোনা করে দেশে ফিরে আসে তবে সেই ডিগ্রীকে বৈধ গণ্য করা হবে।

ইউজিসি চেয়ারম্যান জানান যদি কোন বিদেশী বিশ্ববিদ্যালয় হঠৎ মাঝপথে ক্যাম্পাস বন্ধ করে ফিরে যেতে চায় সেক্ষেত্রে সেই সকল পড়ুয়ার জন্য উপযুক্ত ব্যবস্থা নেবে ইউজিসি। ইউজিসি সর্বদা পড়ুয়াদের শিক্ষার অধিকার কোন ভাবেই ক্ষুন্ন না হয় সেদিকে নজর রাখবে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *